Home / Breaking News / শ্রীমঙ্গলে সংখ্যালঘু এডভোকেট উত্তরা দেব চৌধুরীর উপর সন্ত্রাসী হামলা

শ্রীমঙ্গলে সংখ্যালঘু এডভোকেট উত্তরা দেব চৌধুরীর উপর সন্ত্রাসী হামলা

সংগৃহিত ছবি।

সংগৃহিত ছবি।

নিজস্ব সংবাদদাতা : মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল শহরের স্টেশন রোডস্থ পপুলার ট্রেড সেন্টারে গত বৃহষ্পতিবার (২৫ মে ২০১৯) রাত আনুমানিক ১০টার দিকে হেলাল তপাদার ও তার মেয়ে সানজিদা, দোকানের ম্যানেজার ফয়সল এর নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে এডভোকেট উত্তরা দেব চৌধুরীকে মারাত্মকভাবে জখম করে ।

এ ব্যাপারে স্বর্গীয় ক্ষিরোদ বিহারী দেব চৌধুরীর ছেলে পান্না লাল দেব চৌধুরী টুটুল বলেন, হেলাল তপাদার আমাদের ভাড়াটিয়া নন, ভাড়াটিয়া তার ভাই মুজিব তপাদার । সে প্রবাসে চলে যাওয়ার প্রাক্কালে তিন মাসের মধ্যে দোকান মধ্যে দোকান ছাড়িয়া দিবে বলে যায় এবং ভাড়া দেওয়া বন্ধ করে দেয় । ভাড়াটিয়া মুজিব তফাদার কিছু দিন আগে দেশে আসিয়ে বিভিন্ন জনের কাছে বলছেন আমার ভাই হেলাল তরফদার জোর করে দোকান কোঠায় দোকানদারি করছেন । পরবর্তীতে ঐ দোকান খালি করার জন্য হেলাল তফাদার আমাদের নিকট মোটা অংকের চাঁদা দাবী করে । পরবর্তীতে আমার বোন এডভোকেট উত্তরা দেব স্থানীয় জনসাধারণের সহযোগীতায় দোকান ঘরটি খালি করে এবং দোকানে তালা লাগিয়ে দেয় ।

এই ঘটনার প্রেক্ষিতে হেলাল তপাদার ও তার মেয়ে সানজিদার নেতৃত্বে ভাড়াটিয়া ১০/১৫ জন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী সহ আসিয়া তালা ভাংচুর করে প্রবেশ করে । খবর পেয়ে উত্তরা দেব চৌধুরী ছুটিয়া গেলে হেলাল তফাদার সজোরে রড দিয়ে মাথায় আঘাত করে আর চিৎকার করে বলতে থাকে “মালোয়ানের বাচ্চাকে মেরে ফেল”। এ দেশ তোদের না তোরা এ দেশে কেন, তারাতারি ভারতে পালা। তারপর শুরু হয় সকলের মারধর । ছোটবেলা থেকে দেখে আসা বাড়িতে বাপ-দাদাদের কাজের লোকেদের দ্বারা অতর্কিত হামলা হতবম্ব পড়ে উপস্থিত জনগন ও উত্তরা দেব চৌধুরী । মারের আঘাতে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন তিনি । নাক থেকে ঝড়তে থাকে রক্ত, চোখ মুখ রক্ত জমাট কালো হয়ে উঠে । টেনে হিচড়ে নিয়ে যেতে চায় দোকান ঘরের ভিতরে । উপস্থিত পার্শ্ববর্তী দোকানদার ও অন্যান্য কর্মচারীদের সহযোগিতায় কোন রকমে প্রাণে বেঁচে যান তিনি । আহত উত্তরা দেব চৌধুরীকে পথমে শ্রীমঙ্গল সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয় । পরবর্তীতে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে মৌলভীবাজারে স্থানান্তর করা হয়। বর্তমানে তিনি মৌলভী বাজার সদর হাসপাতাল (নতুন) এর ৩নং কেবিনে চিকিৎসাধীন আছেন।

এই উত্তরা দেব চৌধুরী ও তার ভাইয়েরা এই দোকান ঘর মালিক ও মার্কেটের মালিক । এডভোকেট উত্তরা দেবচৌধুরী শ্রীমঙ্গলের এক সম্ভ্রান্ত পরিবারের সন্তান । জমিদার স্বর্গীয় রাধানাথ দেব চৌধুরীর নাতিন ও স্বর্গীয় ক্ষীরোদ বিহারী দেব চৌধুরীর মেয়ে, যাদের পারিবারিক ভাবে দানকৃত জমিতে গড়ে উঠেছে শ্রীমঙ্গল পৌরসভা, শ্রীমঙ্গল কালীবাড়ি, দীনময়ী বালিকা বিদ্যালয়, যা বর্তমানে সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, চন্দ্রনাথ স্কুল, রাধানাথ প্রাথমিক বিদ্যালয় যা বর্তমানে বিরামপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়, তাঁর ভাই সাবেক কমিশনার বাবলা দেব চৌধুরী নামে বাবলা দেব স্কুল । তাদের দান করা সম্পদ ভোগ করে আজ শ্রীমঙ্গলবাসী উপকৃত ও প্রতিষ্ঠিত । এতো কিছু দান করার পরও তাদের ভরণপোষণের শেষ সম্বলগুলো কিছু সংখ্যক দৃস্কৃতিকারী কেড়ে নেওয়ার পাঁয়তারা চালাছে।

তিনি আজ প্রতিবেদককে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বলেন, নিজের সম্পদ রক্ষা করতে আজ ৬২বৎসর বয়সে দৃস্কৃতিকারীদের মার খেয়ে আমি হাসপাতালে ভর্তি। প্রশাসন, হিন্দু ধর্মীয় সংগঠনগুলা নিরব ভূমিকায়? বাংলাদেশে এতগুলো হিন্দু সংগঠন কিন্তু তারা আমাদের বিপদেও সময় যদি কোন কাজে না আসে তাহলে কি করে হয়। আমি পেশায় একজন আইনজীবি আমার যদি এমন করণ পরিণতি হয়, তাহলে দেশে সাধারণ হিন্দুদের কি অবস্থা?

তিনি শ্রীমঙ্গল থানায় অভিযোগ করেছেন । কিন্তু প্রশাসন নিরব ভুমিকা পালন করছে বলে অভিযোগ করেন। এসব ঘটনায় দ্রুত ন্যায় বিচারের উদাহরণ সৃষ্টি করা না গেলে মানুষ ক্রমেই বিচার ব্যবস্থা এবং রাষ্ট্রের প্রতি আস্থা হারাবে। সে ক্ষেত্রে সরকারকে এ বিষয়ে উদ্যোগী ভূমিকা পালন করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ফুটপাত দখলমুক্ত করতে বৈঠকে বসছেন ডিএনসিসি মেয়র

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন এলাকার সড়ক ও ফুটপাত থেকে অবৈধ দখল অপসারণের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে ...