Home / Breaking News / রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের লেখা প্রথম বই ‘স্বপ্ন জয়ের ইচ্ছা’ থাকছে এবাবরের বই মেলায়

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের লেখা প্রথম বই ‘স্বপ্ন জয়ের ইচ্ছা’ থাকছে এবাবরের বই মেলায়

সংবাদ পরিক্রমা : এবারের একুশে বইমেলায় আসতে যাচ্ছে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের লেখা প্রথম বই ‘স্বপ্ন জয়ের ইচ্ছা’। এ বইটি তার ভাষণসমূহের সংকলন।

এবারের অমর একুশে বইমেলায়ই রাষ্ট্রপতির এ বইটি প্রকাশের অপেক্ষায় রয়েছে।

এ বইটি ২০১৩ সালের ২৪ এপ্রিল থেকে ২০১৮ সালের ২৩ এপ্রিল পর্যন্ত রাষ্ট্রপতির ভাষণের সার সংকলন। বইটির প্রথম অংশে ২০১৩ থেকে ২০১৫ এবং দ্বিতীয় অংশে ২০১৬ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত ভাষণ পাওয়া যাবে।

রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব জয়নাল আবেদীন গণমাধ্যমকে জানান, বঙ্গভবনে বইটি প্রকাশনার জমকালো উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। খুব শিগগিরই সময়সূচি ঘোষণা করা হবে।

বঙ্গভবন প্রেস উইংয়ের তত্ত্বাবধানে এ বইটি প্রকাশ করেছে গৌরব প্রকাশনী।

প্রেস সচিব জয়নাল আবেদীন বইটির প্রকাশনায় প্রধান সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। এ ছাড়া উপ-প্রেস সচিব আবুল কালাম আজাদ সংকলন ও সম্পাদনা করেছেন। সহকারী প্রেস সচিব ইমরানুল হাসান বইটির প্রকাশনায় সহযোগিতার ভূমিকা পালন করেছেন।

চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা বিভাগ বইটির কভার ছবি সরবরাহ এবং প্রুফ রিডিংয়ে সহযোগিতা করেছে।

প্রেস সচিব জয়নাল আবেদীন জানান, রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সমগ্র চিন্তা-চেতনাজুড়ে রয়েছে দেশ ও জনগণের কল্যাণ। সাধারণ মানুষের খুশিতে তিনি খুশি হন, তাদের দুঃখে তিনি ব্যথিত হন। জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তোলাই তার বড় চাওয়া-পাওয়া। তার সব বক্তৃতা-বিবৃতিতে দেশ ও জনগণের কল্যাণ প্রাধান্য পেয়েছে।

এ ছাড়া সমসাময়িক জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিষয়সমূহও উঠে এসেছে তার বক্তৃতা আর ভাষণে।

‘স্বপ্ন জয়ের ইচ্ছা’ সংকলনটি সাধারণ পাঠক, রাজনৈতিক কর্মী, গবেষক, ছাত্র-শিক্ষকসহ সমাজের বিভিন্ন স্তরের মানুষের চিন্তার বহিঃপ্রকাশ ঘটাবে বলে আশা করছেন প্রেস সচিব জয়নাল আবেদীন।

বঙ্গভবনে তোলা বিভিন্ন দুর্লভ ছবি বইটিতে স্থান পেয়েছে। যেগুলো বইটিকে আরও সমৃদ্ধ ও প্রাণবন্ত করে তুলেছে।

গৌরব প্রকাশনীর স্বত্বাধিকারী এসএম ইফতেখার মাহমুদ বলেন, জাতির জন্য বিশেষ করে তরুণ প্রজন্মের জন্য একটি গাইডলাইন হিসেবে কাজ করবে বইটি। বইটি পড়ে সবাই খুশি হবেন, আনন্দ পাবেন।

আবদুল হামিদ তার প্রথম মেয়াদে ২০১৩ সালের এপ্রিলে রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হন। ২০১৮ সালে তিনি দ্বিতীয়বারের মতো পুনরায় রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হন।

এই রাজনীতিবিদ ২০০৯ সালের জানুয়ারি থেকে ২০১৩ সালের এপ্রিল পর্যন্ত জাতীয় সংসদের স্পিকারের দায়িত্ব পালন করেন। এর আগে বিরোধীদলীয় উপনেতারও দায়িত্ব পালন করেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের একনিষ্ঠ সহকর্মী এই প্রবীণ রাজনীতিক।

তিনি ছাত্রলীগের দায়িত্ব পালন শেষে দীর্ঘ ৩৭ বছর কিশোরগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। কিশোরগঞ্জের মিটামইন উপজেলার কামালপুরের কৃতী সন্তান অ্যাডভোকেট আবদুল হামিদ কিশোরগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এবং বর্তমান কিশোরগঞ্জ-৪ (ইটনা,মিটামইন ও অষ্টগ্রাম) আসন থেকে জাতীয় সংসদ সদস্য হিসেবে টানা ৭বার নির্বাচিত হওয়ার গৌরব অর্জন করেন।

একাধারে দীর্ঘদিন রাজনীতি, সমাজকর্ম এবং সুখে-দুঃখে পাশে থাকার কারণে এলাকাবাসী তাকে ভাটির শার্দুল উপাধিতে ভূষিত করেন।

১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে অসামান্য অবদানের জন্য ২০১৩ সালে মহান এ ব্যক্তিত্বের সাফল্যের মুকুটে স্বাধীনতা দিবস পুরস্কারে হিরণ্ময় পালক যুক্ত হয়।

একুশের বইমেলায় গৌরব প্রকাশ স্টলে (৪০১ এবং ৪০২) বইটি পাওয়া যাবে। এটি অনলাইনে www.rokomary.com-এর মাধ্যমে কেনা যাবে।

বইয়ের প্রথম ও দ্বিতীয় অংশের দাম যথাক্রমে ৭৫০ এবং ৮০০ টাকা। ক্রেতারা এর ওপর ২৫ শতাংশ ছাড় পাওয়া যাবে বলেও প্রকাশনী সূত্র জানিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

খালেদা জিয়ার বিষয়ে বারবার কথা বলার সময় নেই : সেতুমন্ত্রী

সংবাদ পরিক্রমা: দেশ ও দলের অনেক কাজ আছে, খালেদা জিয়ার বিষয়ে বারবার কথা বলার সময় ...