Home / Breaking News / প্রধানমন্ত্রীকে বিএম মহাসচিবের অভিনন্দন ও কিছু চাওয়া

প্রধানমন্ত্রীকে বিএম মহাসচিবের অভিনন্দন ও কিছু চাওয়া

অভিনন্দন, অসাম্প্রদায়িকতা, মুক্তিযুদ্ধ ও উন্নয়নের চেতনায় বিশ্বাসী এবং প্রগতিশীল মানবিক শক্তির সহায়ক সাড়ে দশ কোটি বাংগালী ভোটারদের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও অভিনন্দন। অভিনন্দন বিজয়ের কান্ডারী উন্নয়নের রুপকার প্রিয়নেত্রী শেখ হাসিনাকে।

06

এদেশের একজন সচেতন নাগরিক হিসেবে নব নির্বাচিত সংসদ সদস্য ও দলের প্রতি বিনীত নিবেদন-

১) নতুন সরকার কে ক্ষমতায় আনার জন্য মুক্তিযুদ্ধের দ্বিতীয় পর্বের এই ভোট যুদ্ধে নিজেদের অবদান রাখতে গিয়ে সারাদেশে আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের যে সকল নিবেদিত কর্মী নিহত হয়েছেন তাদের হত্যার বিচার করতে হবে এবং তাদের পরিবারের যাবতীয় দায়ীত্ব স্থানীয় নির্বাচিত সংসদ সদস্যকেই নিতে হবে।

২) আওয়ামী লীগ থেকে যে সকল এমপি নির্বাচিত হবেন তাদেরকে ঢাকামুখী না হয়ে নিজ নিজ এলাকামুখী হতে হবে। নিজেদেরকে রাজা বাদশাহ মনে করার কোন কারণ নাই, কেননা আপনারা নির্বাচিত হয়েছেন শেখ হাসিনা ও তার দলের অনুগত কর্মীদের দয়ায় আর নেত্রীর প্রতি অবিচল আস্থাশীল জনমানুষের ভোটে। দয়া করে নিজেদের নির্দলীয় কিংবা জামাত বিএনপি সংশ্লিষ্ট আত্মীয় স্বজনদের সুবিধা না দিয়ে দলীয় কর্মীদের মূল্যায়ন করবেন।

৩) মন্ত্রী হওয়ার পর যারা মনে করবেন তারাই সবচেয়ে বেশী ক্ষমতাশালী এবং দলের লোকজনকে তাদের প্রজা মনে করবেন, দয়া করে তারা যেন এই মনোভাব পরিহার করেন। আর তা না হলে এলাকায় এলাকায় দলীয় লোকজন যেন তীব্র প্রতিবাদী হয়।

মাননীয় নেত্রী আমাদের শেষ আশাভরসার প্রতীক;
১) আমরা সুশাসন চাই ই। দূর্নীতিমুক্ত প্রশাসন কেবলমাত্র আপনিই উপহার দিতে পারবেন।
২)যে সকল এমপি মন্ত্রী হওয়ার পর সকল নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যান দয়া করে তাদের মন্ত্রী করবেন না।

৩) দলের বিশৃংখলা সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে আশাকরি আপনি কঠোর হবেন।
৪)প্রশাসনের উচ্চপদে কোন অবস্থাতেই মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী ব্যক্তিকে বসানো যাবে না। দয়া করে নিজের দলের যোগ্য ব্যক্তিকে যথোপযুক্ত পদে বসানোর ব্যবস্থা নিবেন।

৫) আপনি এমন কেউ কে দয়া করে মন্ত্রী করবেন না যারা দলীয় কর্মীদের দিকে না তাকিয়ে অবৈধ সুবিধার বিনিময়ে প্রশাসনে বিএনপি জামাত কে পুনর্বাসন করবেন, যার খেসারত ভবিষ্যতে আবারও আমাদেরকে দিতে হবে।

৬) ড. কামাল, মঈনুল, সাংবাদিক মাহমুদুর রহমান, মান্না, সুলতান, রব, জাফরুল্লাহ সাহেব গং এবং টেলিফোন আলাপে যারা রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ছিলেন, সন্ত্রাসবাদকে মদদ দিয়েছেন সেই সকল নব্য রাজাকারদের আইনের আওতায় আনতে হবে।

প্রিয় নেত্রী, আমরা আপনাকে ভালবাসি। আপনি দীর্ঘজীবি হোন।
জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু।

ডা. এহতেশামুল হক দুলাল, মহাসচিব, বাংলাদেশ মেডিকেল এসেসিয়েশন (বিএমএ)

(লেখকের ফেসবুক থেকে সংগৃহিত)

print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ফাইল ফটো।

সংবাদপত্রকর্মীদের বেতন বাড়াতে মন্ত্রিসভার কমিটি পুনর্গঠন

সংবাদ পরিক্রমা ২৪.কম : সংবাদপত্র ও বার্তা সংস্থার কর্মীদের বেতন বাড়াতে নবম মজুরি বোর্ডের সুপারিশ ...